Archive for December, 2016

একটা গান লিখতে চাই তোমার জন‍্য

December 21, 2016

একটা গান লিখতে চাই তোমার জন‍্য

-মাহফুজ খান

একটা গান লিখতে চাই তোমার জন‍্য

যার সুরকার হব আমি নিজেই

গানটি আমিই গাইবো

বিশ্রামে যখন তুমি চোখ যুগল বন্ধ রাখবে

ঠিক তখনি গানটি বেজে উঠবে

তোমার মনে হবে সুর গুলো খুব দূরের

অস্থিরতা দিবে না তোমাকে এতটুকু বিশ্রাম।

কিংবা যখন তুমি গাড়িতে করে অফিসে যাবে

তোমার নির্বাচিত গানগুলোর মাঝে আমার গানটিও লুকিয়ে থাকবে

খুব হঠাৎ করেই সেটি বেজে উঠবে

এক অজানা অস্থিরতা তোমাকে ব্যাকুল করবে

তুমি শান্তি পাবে না, শান্তি পাবে না।

আমি চাই তোমার একান্ত মুহুর্তেও এই গানটি বেজে উঠুক

তুমি শান্তি পাবে না, শান্তি পাবে না।

Advertisements

​বন্ধু গল্প

December 20, 2016

​বন্ধু গল্প

– মাহফুজ খান
আজ আমার এক চাইনীজ সহকর্মী বিজনেস ট‍্যুরে জাপানে এসেছে। আমার জন‍্য অনেক গিফট নিয়ে এসেছে।😊😊😊 দুই বছর পূর্বে আমরা একই প্রোজেক্টে  বছর খানেক কাজ করেছিলাম। খুব ভাল একটি টিম ওয়ার্ক ছিল। 

গত সপ্তাহে আমেরিকা থেকে আরেক কলিগ বন্ধু বিশাল আকারের সারপ্রাইজ গিফট পাঠিয়েছে। পেয়ে তো খুব খুশী আমি। 😊😊😊 

আমার বাসা থেকে নারিতা এয়ারপোর্টের দূরত্ব প্রায় ১০০ কিমি। পরশুদিন, বর্তমানে একই অফিসে চাকুরী করি এমন একজন কলিগ আচমকা যখন বলে আগামীকাল আপানাদেরকে এয়ারপোর্টে পৌছে দিয়ে আসবো তখন আবেগকে আর ধরে রাখতে পারেনি। তিনি পরের দিন খুব ভোরে আমার বাসায় হাজির উপকার করার জন‍্য।

মনে করতে থাকি আমার কোন কোন ভালো কাজের জন‍্য তারা আমাকে এতটা মনে রেখেছে। সেই কজগুলো খুব বেশী করে করতে চাই।

এতটা বন্ধন যে আমাকে খুব ইমোশোনাল করে তোলে।😢😢😢
কলিগ যখন বন্ধুতে পরিনত হয় তখন খুব ভালো লাগে। 😊😊😊

দন্ত গল্প

December 19, 2016

দন্ত গল্প

-মাহফুজ খান

স্থান: ডেন্টাল হাসপাতাল, কাওয়াগুচি, সাইতামা, জাপান।

জাপানে দাঁতের চিকিৎসা খুবই ব‍্যায়বহুল। কথাটি মাথায় রেখে গত চার সপ্তাহ ধরে এখানে আসছি।

“কী যাতনা বিষে, বুঝিবে সে কিসে
কভূ আশীবিষে দংশেনি যারে।”

উপরিউক্ত কবিতার লাইন পড়ে থাকলে বিশ্লেষন নিষ্প্রোয়োজন।


চতুর্থতম সাক্ষাতে ডাক্তার বলিলেন, আমাদের এখানে তিন ধরনের দাঁত পাওয়া যায়। সিরামিক, সোনা এবং রূপা। আমাকে তিনটি স‍্যাম্পলই বিস্তারিত বিবরন সহকারে দেখানো হলো।

ইমপ্লান্ট খরচ সহ দাত লাগাতে যথাক্রমে তিন লাখ, দুই লাখ এবং পঞ্চাশ হাজার ইয়েন খরচ হবে। সিরামিক দাঁত দেখতে হুবহু আসল দাঁতের মতো। আমি তো অবাক। কিন্তু সাধ এবং সাধ‍্যকে এক ঘাটে আনা যে অনেক কঠিন।

তাছাড়া জীবন-যৌবনের অপরাহ্নে এসে সোনা দিয়ে দাঁত বানানোর শখকে বিসর্জন দেয়াই শ্রেয়।

কি আর করা! অগত‍্যা রূপার দাঁত লাগানোর জন‍্য ডাক্তার কে অনুরোধ করলাম।

ডাক্তার এবং সেবিকার মমতাময়ী চিকিৎসায় খুব সুন্দর ভাবে ব‍্যাথামুক্ত দাঁত ইমপ্লান্ট সম্পন্ন হলো।

ডাক্তার ও হাসপাতাল সেবা যে এত সুন্দর ও বিশ্বস্ত হতে পারে তার উদাহরণ হচ্ছে জাপান।